FeniNews

সোনাগাজীতে বিদ্যুতের ভেলকিবাজিতে অতিষ্ঠ ৬৫ হাজার গ্রাহক



নিজস্ব প্রতিনিধি, সোনাগাজী | ইব্রাহিম সোহাগ

বিদ্যুতের ভেলকিবাজিতে অতিষ্ঠ হয়ে উঠেছে সাগর উপকুলীয় উপজেলা সোনাগাজী পল্লী বিদ্যুতের ৬৫ হাজার গ্রাহক। ২৪ ঘন্টায় ১০ ঘন্টা ও বিদ্যুৎ না পাওয়ার অভিযোগ করেছেন এই অঞ্চলের সাধারণ জনগণ। 

স্থানীয়রা জানায়- সোনাগাজীর বেশ কয়েকটি ইউনিয়নে শতভাগ বিদ্যুতায়নের ঘোষণা দেয় সোনাগাজী পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি। আর তাতে জনগনের মাঝে সন্তুষ্টি বিরাজ করছিলো। কিন্তু বিদ্যুতের প্রতি মিনিটে কয়েকবার আসা-যাওয়া আবার কয়েক ঘন্টা পর বিদ্যুৎ আসলেও পাঁচ মিনিট পর আবার বিদ্যুৎ বিভ্রাটের কারণে অতিষ্ঠ হয়ে পড়েন জনগন। আর সামান্য বৃষ্টি হলেতো লোডশেডিং সমস্যা গিয়ে চরমে পৌঁছাই।

উপজেলার সর্বত্রই গত কয়েক সপ্তাহ ধরে হঠাৎ করে দিনে রাতে এক ঘণ্টা পর এক ঘণ্টা করে ২৪ ঘণ্টায় এক এক ফিডে প্রায় ১০ ঘণ্টা করে দুই ফিডে প্রায় ২০ ঘণ্টার মত পল্লী বিদ্যুৎ লোডশেডিং দিচ্ছে। তবে এতো লোডশেডিং দিয়েও তা মানতে না রাজ পল্লী বিদ্যুতের কর্মচারিরা। এই বিদ্যুৎ বিভ্রাটের ফলে বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের হাজার হাজার শিক্ষার্থীদের সন্ধ্যার পরে লেখা পড়ায় চরম বিঘ্ন ঘটছে। রাতের বেলায় বিদ্যুৎ না থাকায় প্রচন্ড গরমে শিশুসহ লোকজন ঘুমাতে না পেরে সর্দী কাশি ও মাথাব্যথাসহ বিভিন্ন রোগে আক্রান্ত হচ্ছে।

বিশেষ করে মোবাইল নির্ভর এই ডিজিটাল যুগে বিদ্যুৎ না থাকায় বিপাকে মোবাইল গ্রাহকেরা। প্রবাসীদের সাথে যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন বলে জানান। তাছাড়া বিদ্যুতের পর্যাপ্ত পরিমাণ উৎপাদন না থাকার পরও সোনাগাজীর বিভিন্ন অঞ্চলে নতুন বিদ্যুৎ সংযোগ প্রদান করে মানুষকে আরো বিপাকে ঠেলে দিচ্ছে বলে জানা যায়।

ভুক্তভোগীরা অভিযোগ করে বলেন, গত কয়েক সপ্তাহে দেশের কোথাও কোন বিদ্যুৎ উৎপাদন কেন্দ্রে বিপর্যয় ঘটেনি। কিন্তু হঠাৎ পল্লী বিদ্যুতের কর্মকর্তারা কৃত্রিমভাবে এ লোডশেডিং সৃষ্টি করেছে বলে ধারণা করা হচ্ছে। উপজেলার প্রায় ৬৫হাজার পল্লীবিদ্যুৎ গ্রাহক লোডশেডিং এর চরম ভেলকিবাজির হাত থেকে বাঁচতে চায়। 

শেখ ফরিদ নামে এক ব্যবসায়ী জানান- দীর্ঘ সময় বিদ্যুত বিচ্ছিন্ন থাকায় চরম ভোগান্তিতে পড়তে হচ্ছে পুরো উপজেলার মানুষদের। অধিকাংশ ব্যবসা প্রতিষ্ঠানই বন্ধ রযেছে। ক্ষতির সমুক্ষিন হচ্ছে পরীক্ষার্থীরাও। ভোগান্তিতে পড়তে হচ্ছে হাসাপাতালের রোগীদেরও।

ফেনী পল্লী বিদ্যুত সোনাগাজী জোনাল অফিসের ডিজিএম মহিউদ্দিন মোসাহেদ উল্লাহ জানান- ভারী বর্ষনে উপজেলার বিভিন্ন এলাকায় বৈদ্যতিক তার ও খুটি ক্ষতিগ্রস্ত হওয়া হয়ে থাকে। ফলে ক্ষতিগ্রস্ত লাইন সচল করতে অনেকখানি সময় লেগে যায়। আমরা বিদ্যু বিভ্রাটের বিষয়টি মাথায় রেখে কাজ করছি। আশা করি এই সমস্যা দ্রুত সমাধান লাভ করবে।




প্রকাশঃ রবিবার, ২২ এপ্রিল ২০১৮, ১০:২০ অপরাহ্ন



ছাগলনাইয়া উপজেলার উত্তর যশপুর গ্রামে সুলতান আহাম্মেদ ফাউন্ডেশন এর উদ্যোগে ফেনীর... বিস্তারিত

ছাগলনাইয়া উপজেলার মহামায়া ইউনিয়নের পশ্চিম দেবপুর গ্রামের শ্বশুর বাড়ি থেকে... বিস্তারিত

ফেনী চেম্বার অব কমার্স এন্ড ইন্ডাস্ট্রিজ ও বাংলাদেশ স্ট্যান্ডার্ডস এন্ড টেস্টিং... বিস্তারিত

জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও বঙ্গমাতা বেগম ফজিলাতুন্নেসা মুজিব জাতীয়... বিস্তারিত

ছাগলনাইয়া উপজেলার নুরুন নেওয়াজ হাই স্কুলে সুলতান আহাম্মেদ ফাউন্ডেশন এর উদ্যোগে... বিস্তারিত

নারীর অধিকার প্রতিষ্ঠায় “বিদ্যমান আইনী সহায়তা ও তৃণমূল নারী নেতৃত্বের ভূমিকা”... বিস্তারিত

ছাগলনাইয়া থানার ডাকাতি মামলার ৫বছর ৬মাসের সাজাপ্রাপ্ত ফেরারী আসামী এলাকার... বিস্তারিত

ছাগলনাইয়া উপজেলার দক্ষিণ মন্দিয়া গ্রামে ছেরাজুল ইসলাম মজুমদার বাড়িতে আদালতের... বিস্তারিত

ছাগলনাইয়া উপজেলার বিভিন্ন এলাকায় সক্রিয় রয়েছে কিশোর গ্যাং। প্রতিনিয়ত হামলার... বিস্তারিত