FeniNews

ঘুরে এলাম লাল পাহাড়ের দেশ রাঙ্গামাটি


রহমত উল্যাহ সুমন>>

দেশকে আরও ভালোভাবে জানতে ও দেশের শ্যামল সবুজে ভরপুর নয়নাভিরাম প্রকৃতিকে উপভোগ করতে ফেনী ইউনিভার্সিটি কম্পিউটার সাইন্স এন্ড ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগ আয়োজন করে বোট এডভেঞ্চার ইন রাঙ্গামাটি। শুক্রবার (২৫ জানুয়ারি ) শতাধিক শিক্ষার্থী দিনব্যাপী এ আয়োজন উপভোগ করে । 

হালকা কুয়াশা পড়া শীতের সকালে সবাই এসে উপস্থিত হয় বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে। ধীরে ধীরে মোটামুটি সবার আসা নিশ্চিত হওয়ার পর বিশ্ববিদ্যালয় রেজিস্ট্রোর আবুল খায়ের স্যার আনুষ্ঠানিকভাবে উদ্বোধন করেন বোট এডভেঞ্চার ইন রাঙ্গামাটি ট্যুর। আমাদের সিএসই ডিপার্টমেন্টের চেয়ারম্যান সাঈদ হোসেন পারভেজ স্যারের তত্বাবধানে বিশ্ববিদ্যালয় প্রাঙ্গণ থেকে সকাল ৭টা ৩০মিনিটে আমাদের যাত্রা শুরু হয় রাঙ্গামাটির উদ্দেশে। শতাধিক শিক্ষার্থীসহ দুটি বাস গন্তব্যের দিকে যাচ্ছে। কারো চোখে হয়তো তখনো ঘুম লেগে আছে, কিন্তু বাসে ওঠার পর হইচই আর আনন্দে সেই ঘুম উধাও হয়ে গেল। আর সবকিছুর সঙ্গে গান তো রয়েছেই। সবাই যার যার জায়গা বেছে নেয়ার কিছুক্ষণের মধ্যেই ট্যুর কমিটির সদস্যরা সবার হাতে সকালের নাশতা পৌঁছে দিলেন। বাস চলছে সেই সঙ্গে চলছে গল্প, আনন্দ আর গান। কেউবা বাসের ভেতরেই ছবি তোলায় ব্যস্ত। ততক্ষণে গাড়ি গিয়ে পৌছায় চট্টগ্রাম অক্সিজেন মোড়ে । সেখানে আমাদের ট্যুরের সঙ্গী হন ফেনী ইউনিভার্সিটি সিএসই ডিপার্টমেন্টের উপদেষ্টা প্রফেসর ড. মোঃ সামছুল আরফিন স্যার । স্যার চট্টগ্রাম প্রকৌশলী বিশ্ববিদ্যালয় (চুয়েট) এর সিএসই বিভাগের প্রধানের দায়িত্ব পালন করছেন। স্যারকে পেয়ে ট্যুরের নতুন আনন্দের মাত্রা যোগ হয়। 

দুই পাশের উঁচু নিচু পাহাড়ের বুক ঘেঁষে আঁকাবাঁকা ঢেউ তোলা সবুজ পাহাড়ের বুকচিরে কালো পিচের সর্পিল রাস্তা দিয়ে পথ চলতে চলতে পাহাড়ের অপরুপ সৌন্দর্য সবাইকে মুগ্ধ করে। মাঝ পথে আমাদের দুইটি বাসের মধ্যে একটির যান্ত্রিক ত্রুটি দেখা দেয়। দক্ষ ড্রাইভার এবং হেলপারের ২০ মিনিট চেষ্টার পর আবার আকাঁ বাঁকা পথে চলতে শুরু করে আমাদের বাস। দুপুর সাড়ে ১২টায় আমরা পৌছায় লাল পাহাড়ের দেশ রাঙ্গামাটিতে, যেখানে আগে থেকে প্রস্তুত ছিল আমাদের বোট। সবাই বাস থেকে প্রয়োজনীয় জিনিসপত্র বোটে তুলতে শুরু করে। আগে থেকে অর্ডার করা খাবারও এসে যায় বোটে। ট্যুরের তত্বাবধায়ক ডিপার্টমেন্টের চেয়ারম্যান সাঈদ হোসেন পারভেজ স্যার সব কিছু ঠিকঠাক আছে কিনা সেই বিষয়গুলো দেখছেন ভালোভাবেই। 

এরই মধ্যে সবাই বোটে উঠে গেছে। বোটের মধ্যে থেকে কাপ্তাই লেকের সৌন্দর্য উপভোগ করছেন সবাই। বিশাল কাপ্তাই লেকের পুরোটাই যেন অপার মমতায় দুহাত দিয়ে ধরে রেখেছে পাহাড়গুলি। আকাশের মেঘ আর তার নীলাভ আভা খেলা করে লেকের জলে। সবাই বোটে উঠার পর সবার হাতে দুপুরের খাবার পৌছা দিলেন ট্যুর কমিটির সদস্যরা। বোটের মধ্যে দুপুর খাবার শেষ করে সবাই । তার কিছুক্ষণ পর বোট যাত্রাশুরু করলো শুভলং ঝর্ণার উদ্দেশ্যে। পাহাড়ের মাঝ দিয়ে কাপ্তাই লেকে আমাদের বোট চলতে থাকে । দুই পাশের পাহাড় আর লেকের স্বচ্ছ পানির সৌদর্য অপলক দৃষ্টিতে দেখছে সবাই। কেউ কেউ সেলফি তুলতেও ব্যস্ত।  প্রায় এক ঘন্টা ইঞ্জিন চালিতে বোটে চলার পর আমরা শুভলং ঝর্ণার পৌছায়।  শুষ্ক মৌসুম হওয়ায় নিষ্প্রাণ ঝর্না দেখে অনেকের কাছে একটু খারাপ লাগে কিন্ত সেই খারাপ লাগা বেশিক্ষন থাকেনি লেকের অপরূপ সৌন্দর্য দেখে । 

সেখান থেকে ফেরার পথে বোটের মধ্যে চলে বিভিন্ন খেলার আয়োজন। আমাদের বুশরাত ম্যাডামের প্লেনিং অনুযায়ী বেলুন ফুলানো, অভিনয়ে শব্দ বলা, এলোমেলো শব্দ গুছিয়ে বলা খেলা সবাই উপভোগ করে। সাথে আকর্ষনীয় রেফেল ড্র বিজয়ীদের নাম ঘোষণা করা হয়। এর মধ্যে আমারা  পেডা টিং টিং গিয়ে পৌছায় । সেখানে কিছুক্ষণ ঘুরার পর আমাদের বোট রাঙ্গামাটি ঝুলন্ত ব্রীজের দিকে যাত্রা শুরু করে। সবাই অধীর আগ্রহে অপেক্ষা করছে ঝুলন্ত ব্রীজের সৌন্দর্য উপভোগ করতে। কিছুক্ষনের মধ্যে আমাদের বোট পৌছায় নয়নাভিরাম বহুরঙা ঝুলন্ত ব্রীজে। ব্রীজটি পারাপারের সময় সৃষ্ট কাঁপুনি যেনো এক অসাধারণ অনুভূতি। এখানে দাঁড়িয়েই দেখলাম কাপ্তাই হ্রদের মনোরম দৃশ্য। সেখানে কিছুটা সময় কাটিয়ে কাপ্তাই লেকের সৌন্দর্য্য দেখতে দেখতেই ওদিকে সন্ধ্যার আঁধার ঘনিয়ে এল । পাহাড় চূঁড়ায় বসে সন্ধ্যায় সব আলোকে ম্লান করে সূর্য্যাস্তের দৃশ্য সত্যি অপরূপ। সন্ধ্যায় নামার সাথে সাথে চারদিকে লাল-নীল-সবুজ বাতি মিটমিট করে জ্বলছে। মনোরম সেই দৃশটিও সবাই উপভোগ করলো।

আমাদেরও বাড়ী ফেরার সময় হয়ে গেল। সন্ধ্যা ৭টায় ফেনী পথে আমাদের বাস ছাড়লো। রাত ১২টায় আমরা আমাদের নীড়ে এসে পৌছাই। ট্যুরের দুইদিন পর রেফেল ড্র ও ট্যুর কমিটির সদস্যদের পুরস্কার অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। ডিপার্টমেন্টের চেয়ারম্যান সাঈদ হোসেন পারভেজ স্যারের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন আমাদের ফেনী ইউনিভার্সিটি উপাচার্য প্র্রফেসর ড. সাইফুদ্দিন শাহ, বিশেষ অতিথি ছিলেন ট্রেজারার প্রফেসর তায়বুলর হক, রেজিস্ট্রার এ এস এম আবুল খায়ের, সিএসই ডিপার্টমেন্টের লেকচারার বাহার উদ্দিন মাহমুদ, বুশরাত জাহানসহ রেফেল ড্র কুপন বিজয়ী ও বিভাগের শিক্ষার্থীরা। এর মধ্যে দিয়ে শেষ হয় আমাদের সিএসই ডিপার্টমেন্টের বোট এডভেঞ্চার ইন রাঙ্গামাটি ট্যুর।




প্রকাশঃ সোমবার, ০৪ ফেব্রুয়ারী ২০১৯, ০৮:৩৪ অপরাহ্ন


অনলাইন হোম ডেলিভারি সেবাদানকারী প্রতিষ্ঠান গতি ডেলিভারি সার্ভিস শিশুদের জন্য... বিস্তারিত

অনলাইন হোম ডেলিভারি সেবাদানকারী প্রতিষ্ঠান গতি ডেলিভারি সার্ভিস শিশুদের জন্য... বিস্তারিত

‘সবুজে বাঁচি,সবুজে বাঁচাই,নগর প্রাণ প্রকৃতি সাজায়’এই স্লোগানে শুভপুর সমাজ কল্যাণ... বিস্তারিত

ফেনী ডিবেট ফোরামের আয়োজনে এবং ফেনী মুহুরী লিও ক্লাবের সহযোগিতায় শুরু হলো "ফেনী... বিস্তারিত

করোনা কালে শিক্ষার্থীদের মেস ভাড়া মওকুফে রাষ্ট্রীয় প্রজ্ঞাপন, সকল শিক্ষা... বিস্তারিত

আহসান আবিদঃ ফেনীর পরশুরাম উপজেলার মির্জানগরে করোনার প্রাদুর্ভাবে অসহায় কর্মহীন... বিস্তারিত

করোনা ভাইরাসের সংক্রমন এড়াতে শিক্ষা মন্ত্রনালয় গত ১৬ মার্চ ২০২০ খ্রি. এক... বিস্তারিত

ফেনী কলেজ রাষ্ট্রবিজ্ঞান অ্যালামনাই এসোসিয়েশন’র উদ্যোগে খাদ্যসামগ্রী বিতরণ... বিস্তারিত

ফেনী ইউনিভার্সিটিতে ১৯, ২০ ও ২১তম ব্যাচের শিক্ষার্থীদের নবীন বরণ অনুষ্ঠিত হয়েছে।... বিস্তারিত